মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪ ৩ বৈশাখ ১৪৩১

ফের অছাত্রদের সহযোগিতা করার অভিযোগ কুবি প্রক্টরের বিরুদ্ধে
কুবি প্রতিনিধি:
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারি, ২০২৩, ৮:১০ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ফের অছাত্রদের সহযোগিতা করার অভিযোগ কুবি প্রক্টরের বিরুদ্ধে

ফের অছাত্রদের সহযোগিতা করার অভিযোগ কুবি প্রক্টরের বিরুদ্ধে

আবরও প্রক্টরের সহযোগিতায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ৩১৮ নং রুমে অছাত্ররা ওঠার চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তবে শাখা ছাত্রলীগের বাধা ও হল প্রাধ্যক্ষের অনুমতি না থাকায় হলে ওঠতে পারেননি তাঁরা। এসময় অছাত্রদের সাথে ছাত্রলীগের হাতাহাতি হলে এক সহকারী প্রক্টরের সাথে উচ্চবাচ্য হয় ছাত্রলীগের দুই নেতার। গত সোমবার রাত সাড়ে ৯ টায় এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, বঙ্গবন্ধু হলের ৩১৮ নং রুমে তালা ভেঙ্গে ৪টি বেড নিয়ে হলে উঠার চেষ্টা করেন শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক স্বজন বরণ বিশ্বাস, খালেদ সাইফুল্লাহ হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী বিপ্লব চন্দ্র দাস, আমিনুর বিশ্বাস, মাহি হাসনাইন, ইকবাল খান ও ফয়সাল। তাদের হলে ওঠার বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের নেতা সাদ্দাম হোসেন মাহি হাসনাইনকে জিজ্ঞাসা করে কে হলে উঠতে বলছে। প্রতিত্তোরে মাহি প্রক্টরের (কাজী ওমর সিদ্দিকী) অনুমতি নিয়ে আসছেন বলে দাবি করেন। পরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের নিয়ে প্রাধ্যক্ষের রুমে আসলে প্রক্টরের অনুমতির বিষয়টিকে অস্বীকার করেন মাহি।

এদিকে প্রশাসনের দায়িত্বে অবহেলা ও একটিপক্ষকে সহযোগিতা দেওয়ার জন্য প্রশাসন বারবার ইন্ধন দিচ্ছে বলে অভিযোগ ছাত্রলীগের। তাদের দাবি, এখানে হত্যা মামলার প্রধান আসামিসহ কয়েকজন অছাত্র এসে হলে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করেছে। তারাই কয়েক মাস আগে বহিরাগতদের নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে ককটেল ও ফাঁকাগুলির বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। কিন্তু এখনো তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি প্রশাসন। বরং অবাধেই ক্যাম্পাসের আশেপাশে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তাঁরা। তাঁরা যদি ঐসকল ঘটনার কোনো ব্যবস্থা নিত তাহলে হলে আসার কোনো সাহস পেত না।

অছাত্রদের হলে উঠতে প্রক্টরের সহযোগিতার বিষয়ে ছাত্রলীগের একনেতা জানান, শাখা ছাত্রলীগকে দুর্বল করতে প্রক্টরে এটি প্রতিবার করে আসছে যাতে করে শিবিরের সভাপতি, ছাত্রদলের সভাপতিকে নিয়ে তাঁরা মিটিং করতে পারে। এর আগেও তিনি ক্যাম্পাসে অস্ত্রমহড়ার সময় তাদের গেট খুলে দেন এবং এখনো কোনো ঘটনার ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

তবে এমন অভিযোগের বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) কাজী ওমর সিদ্দিকী। তিনি বলেন, কতলোক তো কত কথায় বলে। তাতে কি আসে যায়।

এদিকে অছাত্রদের সাথে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হাতাহাতি শুরু হলে ছাত্রলীগকে বাঁধা দেন সহকারী প্রক্টর অমিত দত্ত ও অন্যান্যরা। এসময় তাঁর সাথে উচ্চবাচ্য করেন শাখা ছাত্রলীগের নেতা এনায়েত উল্লাহ ও সালমান চৌধুরী। এসময় সালমান সহকারী প্রক্টরকে উদ্দ্যেশ করে “তুই কে” বলে সম্ভোধন করেন।

প্রসঙ্গত, বহিরাগতরা গত ১ অক্টোবর প্রক্টরিয়াল টিমের উপস্থিতিতে অস্ত্রসহ মোটরবাইক শোডাউন, ককটল বিস্ফোরণ ও ফাঁকাগুলি ছুড়ে। এছাড়াও কাজী নজরুল ইসলাম এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনায় ৩০ থেকে ৩৫ জন নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়। এতে ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর কাজী ওমর সিদ্দিকী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিমের নীরব ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তাদের মতে, প্রক্টর সেখানে উপস্থিত থেকেও উপযুক্ত পদক্ষেপ নেয়নি। উল্টো তিনি এই সংঘর্ষকে বিভিন্নভাবে উস্কে দিয়েছেন।




ডেল্টা টাইমস্/সাঈদ হাসান/সিআর/এমই

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
  এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ  
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো. আমিনুর রহমান
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২ জামান টাওয়ার (লেভেল ১৪), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত
এবং বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস ২১৯ ফকিরাপুল, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত।

ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : deltatimes24@gmail.com, deltatimes24@yahoo.com
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো. জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো. আমিনুর রহমান
প্রকাশক কর্তৃক ৩৭/২ জামান টাওয়ার (লেভেল ১৪), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত
এবং বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস ২১৯ ফকিরাপুল, মতিঝিল থেকে মুদ্রিত।
ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : deltatimes24@gmail.com, deltatimes24@yahoo.com