রোববার ৯ আগস্ট ২০২০ ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭

বেসরকারি শিক্ষকদের চাকরিতে যোগদানের ১০ বছর পূর্ণ হলে উচ্চতর গ্রেড দেয়ার দাবি
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০২০, ৪:২৬ পিএম আপডেট: ৩০.০৬.২০২০ ৬:১৪ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

বিএড স্কেল কোন উচ্চতর গ্রেড নয়,এটি শিক্ষকদের একাডেমিক যোগ্যতা পরিমাপকাঠি।কেউ বিএড নিয়ে চাকরিতে প্রবেশ করে, আবার কেউ পরেও বিএড করে।এ বিষয়ে সরকারি নির্দেশনা রয়েছে চাকরিতে যোগদানের ৫বছরের মধ্যে বিএড করতে হবে। শিক্ষকদের উচচতর গ্রেড বিএড থেকে হিসেব না করে চাকরিতে যোগদানের সময় থেকে নিরবচ্ছিন্ন ১০বছর হিসেবে প্রদান করতে  হবে।
বাশিস লোগো

বাশিস লোগো

মঙ্গলবার (৩০ জুন) ডেল্টা টাইমসে পাঠানো বিবৃবিতে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতি ও এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরামের মুখপাত্র মোঃ নজরুল ইসলাম রনি এবং বাশিসের কেন্দ্রীয় মহাসচিব মোঃ মেজবাহুল ইসলাম প্রিন্স  এ দাবি জানান।

দাবির স্বপক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষকরা অনেক সময় চাকরিতে যোগদানের ৫ থেকে ১০বছর পরেও এমপিওভুক্ত হয় বিভিন্ন জটিলতায়। সব মিলিয়ে শিক্ষকদের ভোগান্তির শেষ নেই।ইতোমধ্যেই শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বেসরকারি শিক্ষকদেরকে ১০বছরে একটি উচ্চতর গ্রেড প্রদানের পরিপত্র জারি করা হয়েছে।কিন্তু সেখানে শিক্ষক স্বার্থ পরিপন্থী ও অস্পষ্ট কতিপয় নির্দেশনা রয়েছে।এতে জেলা শিক্ষা অফিসার ও শিক্ষকরা চরম ভোগান্তিতে পড়েছে।উচচতর গ্রেড প্রদানে নানা জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে।ফলে শিক্ষক সমাজে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।ক্ষুন্ন হচ্ছে শিক্ষাবান্ধব সরকারের।

বিবৃতিতে শিক্ষক নেতারা বলেন, অন্যদিকে সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক/প্রধান শিক্ষিক/অধ্যক্ষ/উপাধ্যক্ষরা চাকরিতে যোগদানের ১০বছরের মধ্যেই উচ্চতর গ্রেড পাচ্ছেন। কাজেই বেসরকারি শিক্ষকদের ক্ষেত্রে বিধি মোতাবেক তথা যোগদান থেকে ১০বছরে ১টি উচ্চ তর গ্রেড প্রদানের কার্যক্রম গ্রহণ করার যথেষ্ট যুক্তি রয়েছে। করোনার ভয়াবহ এ দুঃসময়ে গৃহবন্দি শিক্ষক সমাজ চরম অর্থ সংকটে।এ সময়ে শিক্ষকদেরকে ন্যায্য পাওনা দিতে শিক্ষামন্ত্রী ও শিক্ষা সচিব মহোদয়ের সু-দৃষ্টি কামনা করেন শিক্ষক নেতারা।

বিবৃতিতে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ আরো বলেন,বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকরা বর্তমানে ৭ম গ্রেডে বেতন পাচ্ছেন। কিন্তু সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকরা ৬ষ্ঠ গ্রেডে বেতন পাচ্ছেন।এক্ষেত্রেও বেতন বৈষম্য।বেসরকারি সহকারী প্রধান শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষক এবং অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষরা সবাই ১০বছরে ১টি এবং পরবর্তীতে ৬বছরে আরো একটি উচ্চতর গ্রেড পাবে।সরকারি সব সুযোগ সুবিধা বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারীরা পান না।কাজেই ১৬বছরে ২য় উচ্চতর গ্রেডের বিষয়ে মহামান্য হাইকোর্টের মামলা এটি বেসরকারি শিক্ষকদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়।ঐ মামলা সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নিজেদের স্বার্থে করেছেন।বেসরকারি শিক্ষক হয়রানি বন্ধ করতে হবে।
কলেজ শিক্ষকদের অনুপাত প্রথা বাতিলসহ পদোন্নতি,অনার্স-মাস্টার্স কলেজ শিক্ষকদের অবিলম্বে এমপিওভুক্তি এবং আসন্ন ঈদুল আজহার পূর্বেই ২৫ শতাংষের পরিবর্তে পূর্ণাঙ্গ ঈদবোনাসের ব্যবস্থা করাসহ মুজিববর্ষেই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান একসাথে জাতীয়করণ ঘোষণা করার জোর দাবি জানান।

ডেল্টা টাইমস/জেডএইচ/সিআর

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
  এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ  
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো: আমিনুর রহমান
প্রধান কার্যালয়: মহাখালী ডিওএইচএস, রোড নং-৩১, বাড়ী নং- ৪৫৫, প্রকাশক কর্তৃক বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে মুদ্রিত
২১৯ ফকিরাপুল থেকে (১ম লেন নীচ তলা), মতিঝিল থেকে প্রকাশিত।  বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২ জামান টাওয়ার (১৫ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।

ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো: আমিনুর রহমান
প্রধান কার্যালয়: মহাখালী ডিওএইচএস, রোড নং-৩১, বাড়ী নং- ৪৫৫, প্রকাশক কর্তৃক বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে মুদ্রিত
২১৯ ফকিরাপুল থেকে (১ম লেন নীচ তলা), মতিঝিল থেকে প্রকাশিত।  বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২ জামান টাওয়ার (১৫ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]