সোমবার ১৮ জানুয়ারি ২০২১ ৪ মাঘ ১৪২৭

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি:
প্রকাশ: বুধবার, ১৩ জানুয়ারি, ২০২১, ৬:৫২ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম

প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধনের প্রায় ৪ বছর পরেও লক্ষ্মীপুর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ১০তলা বিশিষ্ট একটি অত্যাধুনিক ভবন হস্তান্তর করছে না জেলা গণপূর্ত বিভাগ। ফলে বাধ্য হয়ে ঝুঁকিপূর্ণ পুরাতন ভবনে ঝুঁকি নিয়ে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে হচ্ছে বিচারকদের। জেলা গণপূর্ত বিভাগের কর্মকর্তা ও ঠিকাদারের অনিয়ম দুর্নীতির কারণে এমন সংকট সৃষ্টি হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।
ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম


এই ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে প্রতিদিন হাজার হাজার বিচারপ্রার্থী মানুষের সমাগম ঘটে এই ভবনটিতে। ফলে জরাজীর্ণ পুরাতন একটি ভবনে ঝুঁকি নিয়ে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। ভবনটির প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ফাটল দেখা যাচ্ছে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে উপর থেকে অনেক সময় খসে পড়ছে পলেস্তারা। ঝুঁকি এড়াতে ভবনটি সিড়ি কাঠ দিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।  যেকোনো সময় এখানে ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। লক্ষ্মীপুর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ১০তলা বিশিষ্ট অত্যাধুনিক ভবনটির যথাযথ মান যাচাইপূর্বক নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ করার দাবি জানান আইনজীবীরা।
ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম


২০১৪ সালে প্রকল্পটির কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও জেলা গণপূর্ত বিভাগ ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম-দুর্নীতির কারণে ভবনটির কাজ এখন পর্যন্ত শেষ করতেই পারেনি অভিযোগ আইনজীবীদের। একদিকে ভবনের কাজে ধীরগতি অন্যদিকে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার উন্নয়ন প্রকল্পটিকে হুমকির মধ্যে ফেলে দিয়েছে। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনকেও প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।  যার কারনে এখন পর্যন্ত ভবনটি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট হস্তান্তর করেনি ও গণপূর্ত বিভাগ।

এদিকে ২০১২ সালে ২২ কোটি ৫৪ লাখ টাকা ব্যয়ে লক্ষ্মীপুর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ১০তলা বিশিষ্ট একটি অত্যাধুনিক ভবন নির্মাণের বরাদ্দ পায় জেলা গণপূর্ত বিভাগ। মেসার্স আবদুল খালেক কনস্ট্রাকশন নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান দরপত্রের মাধ্যমে উন্নয়ন প্রকল্পটির কাজ শুরু করে। ২০১৪ সালে প্রকল্পটির কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। এরপর ২০১৭ সালে ১৭ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা লক্ষ্মীপুর সফরে এসে ভবনটি উদ্বোধন করেন।

লক্ষ্মীপুর জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট জসীম উদ্দীন বলেন পুরাতন জরাজীর্ণ ভবনে আদালত পরিচালিত হচ্ছে যে কোন মুহুতে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে, দ্রুত ভবনটি বুঝিয়ে দিতে আহবান জানান তিনি।
ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম


সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক হাবিবুর রহমান বলেন, নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করার কথা থাকলো এখনো বুঝিয়ে দেওয়া হয়নি এই ভবনটি। এছাড়াও নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে কাজ করছে তা নিয়ে বার বার অভিযোগ জানিয়েছি কিন্তু তাতে গুরুত্ব দিচ্ছেনা ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান। এছাড়াও ঝুকিপূর্ণ ভবনে বিচারিক কার্য পরিচালনা করতে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটলে এর দায় নিবে কে বলেন এই আইনজীবী।
ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই চলছে লক্ষ্মীপুর জেলা আদালতের কার্যক্রম


জেলা গণপূর্ত বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ ফারুক হোসেন বলেন মান বজায় রেখে কাজ হচ্ছে, আর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সরকারের কাছে বরাদ্ধের অর্থ পাবে তা বুঝে পেলে ভবন বুঝিয়ে দিবেন এমটি বলছেন এই কর্মকর্তা।



ডেল্টা টাইমস্/ফিরোজ আলম রাসেল/এম আর/সিআর/জেড এইচ


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
  এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ  
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো: আমিনুর রহমান
প্রধান কার্যালয়: মহাখালী ডিওএইচএস, রোড নং-৩১, বাড়ী নং- ৪৫৫, প্রকাশক কর্তৃক বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে মুদ্রিত
২১৯ ফকিরাপুল (১ম লেন নীচ তলা), মতিঝিল থেকে প্রকাশিত।  বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২ জামান টাওয়ার (১৫ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।

ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো: আমিনুর রহমান
প্রধান কার্যালয়: মহাখালী ডিওএইচএস, রোড নং-৩১, বাড়ী নং- ৪৫৫, প্রকাশক কর্তৃক বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে মুদ্রিত
২১৯ ফকিরাপুল (১ম লেন নীচ তলা), মতিঝিল থেকে প্রকাশিত।  বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২ জামান টাওয়ার (১৫ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]