বৃহস্পতিবার ২০ জানুয়ারি ২০২২ ৫ মাঘ ১৪২৮

'প্রতিমন্ত্রী এ ধরনের কথা বলবেন জানলে মাহিকে ফোন ধরিয়ে দিতাম না'
ডেল্টা টাইমস ডেস্ক:
প্রকাশ: মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২১, ২:০৬ পিএম | অনলাইন সংস্করণ

'প্রতিমন্ত্রী এ ধরনের কথা বলবেন জানলে মাহিকে ফোন ধরিয়ে দিতাম না'

'প্রতিমন্ত্রী এ ধরনের কথা বলবেন জানলে মাহিকে ফোন ধরিয়ে দিতাম না'

গত রোববার নায়িকা মাহিয়া মাহিকে কেন্দ্র করে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের সঙ্গে ঢাকাই ছবির নায়ক মামনুন ইমনের একটি অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়েছে। সেই অডিও ক্লিপস ফাঁস হওয়ার পর রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে গিয়েছিলেন  ইমন।

সোমবার রাত ৮টার দিকে ডিবির যুগ্ম কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদের সঙ্গে তার কার্যালয়ে দেখা করেন ইমন। কেনো ইমন ডিবি কার্যালয়ে গিয়েছিলেন? প্রশ্ন রাখলে  ইমন জানান, প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের সঙ্গে অডিও প্রকাশ নিয়ে ভুল–বোঝাবুঝির অবসানের জন্য আইনি পরামর্শ নিতে ডিবি অফিসে গিয়েছিলেন।

ইমন বলেন, ‌‘হারুন ভাই আমার পূর্ব পরিচিত। তার সঙ্গে এর আগে নানা সময়ে আমার দেখা ও কথা হয়েছে। গতকাল যখন মন্ত্রীর সঙ্গে কল রেকর্ড ফাঁস হয়, সারা দিন এ নিয়ে আমাকে কথা বলতে হয়েছে। আমি নিজের অবস্থান সবাইকে পরিস্কার করলেও, সহকর্মীরাই আমাকে ভুল বোঝেন। কেউ কেউ আবার আমাকে ইঙ্গিত করে ফেসবুকে পোস্টও দেন। এসব আমাকে খুবই বিব্রত করেছে, কষ্ট দিয়েছে। ফেসবুকে অনেকে আবার আমাকে নিয়ে নেতিবাচক নানা কথাবার্তা বলার চেষ্টা করেছেন। বিপর্যস্ত আমি, তাই হারুন ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলতে রাতেই তার অফিসে দেখা করতে যাই। আমার অবস্থান তার কাছে পরিষ্কার করি। এরপর এসব বিষয়ে আমার কী করণীয়, সে ব্যাপারে পরামর্শও চাই। তিনিও আমাকে সেই পরামর্শ দিয়েছেন। এরপর চা খেয়ে আমি চলে আসি।’

ইমনের দাবি একজন মন্ত্রী যখন কাউকে ফোন দেয় তখন যেভাবে কথা হয় তিনিও সেভাবে কথা বলে তাকে ম্যানেজ করার চেষ্টা করেছেন মাত্র। এই সময়ে তার আর কিইবা করার থাকে।  তবে ইমন কোনো অন্যায়ের সঙ্গে জড়িত নন বলেই জানান।

ইমন বলেন,‘এটা কিন্তু একদম পরিষ্কার, আমি এই ঘটনার সঙ্গে কোনোভাবে জড়িত নই। রাতে যখন মাহি একটি ভিডিওবার্তা দেয়, বিষয়টি আরও পরিষ্কার হয়। আমিও কিন্তু গতকাল সকাল থেকেই সবাইকে বলছি, একজন মন্ত্রী যখন আমাকে ফোন করে এসব কথা বলছেন, আমি শুধু সামাল দিতে ওসব বলেছি।’

ফোনকলে প্রতিমন্ত্রীর ওইসব কথায় বিব্রত হয়েছেন ইমনও। তার দাবি মাহিকে এসব বলবেন জানলে তিনি কখনো তাকে ফোন ধরিয়ে দিতে ন না। ইমন বলেন, ‘ ফোনকল ফাঁস হওয়ার পর  আমি নিজেও ওইসব কথা শুনে বিব্রত হয়েছি। আমার  একজন সহকর্মীকে, একজন নারীকে—মন্ত্রীর এভাবে বলাটা দুঃখজনক। এ ধরনের কথা হবে বুঝতে পারলে, আমি তো ফোনই দিতাম না। একজন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর কাছে আমাদের অনেক চাওয়া। আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অনেক কাজে তাঁদের দরকার হয়, কিন্তু এ ধরনের ভাষা তো আশা করি না'





ডেল্টা টাইমস/সিআর/আর

« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »







  সর্বশেষ সংবাদ  
  সর্বাধিক পঠিত  
  এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ  
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো: আমিনুর রহমান
প্রধান কার্যালয়: মহাখালী ডিওএইচএস, রোড নং-৩১, বাড়ী নং- ৪৫৫, প্রকাশক কর্তৃক বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে মুদ্রিত
২১৯ ফকিরাপুল (১ম লেন নীচ তলা), মতিঝিল থেকে প্রকাশিত।  বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২ জামান টাওয়ার (১৫ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।

ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]
সম্পাদক ও প্রকাশক: মো: জাহাঙ্গীর আলম, নির্বাহী সম্পাদক: মো: আমিনুর রহমান
প্রধান কার্যালয়: মহাখালী ডিওএইচএস, রোড নং-৩১, বাড়ী নং- ৪৫৫, প্রকাশক কর্তৃক বিসমিল্লাহ প্রিন্টিং প্রেস থেকে মুদ্রিত
২১৯ ফকিরাপুল (১ম লেন নীচ তলা), মতিঝিল থেকে প্রকাশিত।  বাণিজ্যিক কার্যালয়: ৩৭/২ জামান টাওয়ার (১৫ তলা), পুরানা পল্টন, ঢাকা-১০০০।
ফোন: ০২-৪৭১২০৮৬১, ০২-৪৭১২০৮৬২, ই-মেইল : [email protected], [email protected]